মহেশপুরে এক মহিলা বসবাসের জন্য ভিটা জমি কিনে বিপাকে

0
মহেশপুরে এক মহিলা বসবাসের জন্য ভিটা জমি কিনে বিপাকে

প্রেসনিউজ২৪ডটকমঃ স্টাফ রিপোর্টার,মহেশপুরঃ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কাজীরবেড়
ইউনিয়নের সামন্তা গ্রামের এক মহিলা প্রায় ১বছর পূর্বে বসবাসের জন্য ৫শতক বাস্ত ভিটা জমি কিনে দখল নিতে পারছে না। ওই মহিলা এলাকায় সামাজিক বিচার চেয়েও জমিতে যেতে পারেনি। জমি ক্রেতা সামন্তা গ্রামের আবুল কালামের স্ত্রী রুবিনা খাতুন জানান,একই গ্রামের আবু তাহেরের স্ত্রী রুপিয়া খাতুনের কাছ থেকে কাজীরবেড় ইউনিয়নের ৪৫নং সামন্তা গোপালপুর মৌজার এস এ ২৪৯ খারিজ ২৬৪৪ হাল ডিপি -৬৮৮ দাগ নং সাবেক ৫৯৯ হাল ডিপি ১০৬৪ শ্রেণী বাস্ত ৬শতক জমির ভিতর১৯.০৩.২০২০ তারিখে ৭লক্ষ টাকা দিয়ে মহেশপুর সাবরেজিষ্ট্রি অফিসে ২৫৮৯ কবলা মুলে ৫শতক জমি ক্রয় করি।

রুপিয়া খাতুন আমার কাছে জমি বিক্রি করার সময় বলেন আমাকে ২মাস সময় দিতে হবে বাড়ী ভেঙ্গে নেওয়ার জন্য। আমি তাকে মৌখিক ভাবে ২মাস সময় দিয়ে সব টাকা বুঝিয়ে দিয়ে জমি রেজিষ্ট্রি করে নেওয়ার পর এখন পর্যন্ত আমার জমি আমাকে ছেড়ে না দিয়ে বিভিন্ন তালবাহনা করছে। আমি সামাজিক বিচার চেয়েও জমিতে বসবাস করতে যেতে পারছি না।

এলাকাবাসী ও সামন্তা বাজারের কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, আমরা শুনেছি আবু তাহেরের স্ত্রী রুপিয়া জমি বিক্রি করেছে কিন্তু সেই জমি দখল নিতে গেলে সে জমি থেকে উঠতে চাচ্ছে না। সে নাকি টাকা দাবী করছে । এটা  নিয়ে সামাজিক ভাবে বসাবসি করলেও কোন সুরাহা হচ্ছে না। এ ব্যাপারে কাজীরবেড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম রেজার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন জমিটি বেচা কেনা হয়েছে এটা ঠিক । মহিলাটি
দাবী করছে বাকি টাকায় রেজিষ্ট্রি করেছি।

ক্রেতা বলছে আমি টাকা সবদিয়ে রেজিষ্ট্রি করেছি। আসলে বিক্রেতা যেটা বলছে ঠিক না বাকি টাকায় রেজিষ্ট্রি হয়না। তবে বাড়ী ভাঙ্গার জন্য হয়ত কিছু দেওয়া নেওয়ার প্রতিসূতি থাকতে পারে। জমি বিক্রেতা রুপিয়া খাতুনের কাছে জানতে চাইলে তিনি ৫ শতক জমি বিক্রির কথা স্বীকার করে বলেন আমি টাকা পাবো বাকিতে জমি রেজিষ্ট্রি করেছি । আমি জমি থেকে আস্তে আস্তে উঠে যাবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here